আমিশাপাড়ায় কলেজছাত্র হত্যার ঘটনায় ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা, চারদিনেও কেউ আটক হয়নি
নিজস্ব প্রতিনিধি
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর উপজেলার সন্ত্রাস কবলিত আমিশাপাড়ায় গভীর রাতে বাড়িতে ঢুকে কলেজ ছাত্র মো. আসিফ উদ্দিন শান্ত (২১) হত্যার ঘটনার থানায় মামলা হয়েছে। রোববার দুপুরে আসিফের বাবা সাহাব উদ্দিন বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় এ মামলা দায়ের করেন। তবে; ঘটনার চারদিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের কাউকে আটক করতে পারেনি।
সোনাইমুড়ি থানা পুলিশ জানায়, মামলার এজহারে আবিরপাড়া গ্রামের শাহেদ, তার ভাই শান্ত, তুহিন ও রুবেলসহ চারজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া আরও ১০-১৫ জনকে  অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তি হিসাবে আসামি করা হয়েছে। এজহারে উল্লেখ করা আসামিরা ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে। এর মধ্যে শাহেদের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে এরই মধ্যে দুইটি এলজি ও বোমা তৈরীর সরাঞ্জম উদ্ধার করা হয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে বারটার দিকে উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়নের বটগ্রামের আসিফদের বাড়িতে হামলা চালায় পাশ্ববর্তী আবিরপাড়া গ্রামের চিহ্নিত সন্ত্রাসী শাহেদের নেতৃতেএকদল সন্ত্রাসী। এ সময় আসিফ ডাকাত বলে চিৎকার দিলে সন্ত্রাসীরা তাঁকে গুলি করে। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় গুলিতে ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত হন আরও তিন জন।
মামলা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী হানিফুল ইসলাম বলেন, আসিফের বাবা সাহাব উদ্দিন মামলা করতে রাজি হচ্ছিলেন না। তিনি অনেক বুঝিয়ে তাঁকে মামলার বিষয়ে রাজি করান। পরে তিনি লিখিত এজহার দেন। অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতারে তৎপরতা অব্যাহত আছে।

সড়ক দূর্ঘটনা, অপরাধ ও হামলা-সংঘর্ষ