ফেসবুক এবং একটি হুইল চেয়ারের গল্প
11
নিজস্ব প্রতিনিধি
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মানবতার জন্যও উদ্বুদ্ধ হতে সহায়তা করছে অহরহ। যে কোন মানবিক আবেদনে সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসেন হৃদয়বান ব্যক্তিরা। উপকৃত হন সমাজের সুবিধা বঞ্চিত মানুষ। তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে নোয়াখালীর সদর উপজেলার বিনোদপুর গ্রামে। ফেসবুকে একটি স্ট্যাটসের কল্যাণে হুইল চেয়া পেয়েছেন এক অসহায় বৃদ্ধা |
তের জুলাই বৃহস্পতিবার ১৩ জুলাই দুপুরে বিনোদপুর গ্রামের বৃদ্ধা ছবুরা খাতুন হুইলকে চেয়ারটি দেয়া হয়। সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া রাহাতের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেখে প্রতিবন্ধী ছবুরা খাতুনের পাশে দাঁড়ালেন এস.ই.এল স্যারিটেবল ফাউন্ডেশন কো-অর্ডিনেটর ইবনুল সাঈদ রানা।
সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া রাহাতের ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাসিম শুভকে সাথে নিয়ে ছবুরা খাতুনের বাড়ীতে গিয়ে হুইল চেয়ারটি দিয়ে আসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বখতিয়ার শিকদার, জি.এম হায়দার চৌধুরী, মাহবুবুল হাসান চৌধুরী রাসেল, সাইদুজ্জামান রাজু, মো: ওয়াসিম উদ্দিন, জামাল উদ্দিন রিহাদ, আবদুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ৩ বছর আগে একটি দূর্ঘটনায় দুই’টি পা বিকল হয়ে যায় নোয়াখালীর সদর উপজেলার বিনোদপুর গ্রামের ছবুরা খাতুনের । স্বামী হারা এই বৃদ্ধার সন্তানদের পক্ষে একটি হুইল চেয়ার কিনে দেয়ার সমার্থ ছিল না। ছবুরা খাতুনের এমন অসহায়ত্বের খবর জানতে পেরে অতি সম্প্রতি ফেসবুকে একটি স্ট্যাস্টাস দেন তরুণ সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া রাহাত।  আর অসহায় বৃদ্ধাকে হুইল চেয়ার প্রদানে এগিয়ে আসেন এস.ই.এল স্যারিটেবল ফাউন্ডেশন এগিয়ে আসে।
কর্মসূচী/অনুষ্ঠান ও প্রবাসের খবর