কবিরহাটে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ
নিজস্ব প্রতিনিধি
কবিরহাট উপজেলার ঘোষবাগ ইউনিয়নের চর আলগী গ্রাম থেকে রোমানা আক্তার (১৯) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় লোকজনের তথ্যের ভিত্তিতে গত সোমবার রাত আটটার দিকে থানা-পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।
নিহতের স্বজনদের দাবি, স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে রোমানা আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় রোমানার বাবা একই ইউনিয়নের রামবল্লবপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা করেছেন। ঘটনার পর থেকে স্বামী মো. সোহাগ পলাতক রয়েছেন।
নিহত রোমানার বাবা দেলোয়ার হোসেন অভিযোগ করেন, পাঁচ মাস আগে ঘোষবাগ ইউনিয়নের চর আলগীর খুরিশদ আলমের ছেলে মো. সোহাগের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে দেলোয়ার ও তার মা হাজেরা খাতুন নানা অজুহাতে রোমানার ওপর নির্যাতন করে আসছে। স্বামী ও শাশুড়ির অব্যাহত নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।
কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মির্জা মোহাম্মদ হাছান বলেন, স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে রোমানা আত্মহত্যা করেছে বলে তার বাবা দেলোয়ার হোসেন অভিযোগ করেছেন। যার প্রেক্ষিতে সোমবার রাতে স্বামীর ঘরের একটি খাটের ওপর থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।
ওসি আরও জানান, নিহত রোমানার মরদেহ গত মঙ্গলবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শাশুড়ি হাজেরা খাতুনকে আটক করা হয়েছে। স্বামী সোহাগ পলাতক রয়েছে।

সড়ক দূর্ঘটনা, অপরাধ ও হামলা-সংঘর্ষ