কোম্পানীগঞ্জ বামনী কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষে মারামারি, আহত ২
নিজস্ব প্রতিনিধি
কোম্পানীগঞ্জের বামনী ডিগ্রি কলেজে ছাত্রলীগের বিবাদমান দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়া হয়েছে। এতে ওয়ার্ড পর্যায়ের দুই নেতা আহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে বারটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা-পুলিশ কলেজ ক্যম্পাসে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
আহত দুই ছাত্র নেতা হলেন ছাত্রলীগের রামপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি সামছুল আলম ওরফে বাপ্পি (১৮) ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক নাঈম হোসেন (১৮)। হামলা তাদের মাথা ফেটে গেছে। পরে সহপাঠিরা তাদের উদ্ধারের পর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি গঠণ নিয়ে আলোচনার জন্য উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা মো. সজিব বৃহস্পতিবার বেলা এগারটার দিকে কলেজ ক্যাম্পাসে যান। তিনি কলেজে নেতৃদানকারী ছাত্রলীগ নেতাদের ডেকে কমিটি গঠণের বিষয়ে আলোচনাকালে দুই ছাত্রলীগ কর্মী ‘সিনিয়র-জুনিয়র’ নিয়ে তর্কাতর্কিতে লিপ্ত হন। এক পর্যায়ে সজিব উভয়পক্ষকে শান্ত করে ক্যাম্পাস ত্যাগ করেন।
এ ঘটনার পর দুপুর সাড়ে বারটার দিকে ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী হিসেবে পরিচিত আরমান হোসেনের নেতৃত্বে একদল বহিরাগত ক্যাম্পাসে ঢুকে পড়ে। তারা এ সময় ক্যাম্পাসে অবস্থানকারী ছাত্রলীগ নেতা সামছুল আলম ও নাঈমের ওপর হামলা চালায়। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে এবং কয়েক দফা পাল্টাপাল্টি ধাওয়া হয়। এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পরে খবর পেয়ে থানা-পুলিশ ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
রামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আবু নাছের বলেন, ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে আলোচনার সময় দুই পক্ষে সামান্য কথাকাটাকাটি হয়। সেটির মিমাংসাও হয়ে যায়। কিন্তু এরপর ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী শিবিরকর্মী আরমানের নেতৃত্বে একদল বহিরাগত হামলা করলে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে দুই ওয়ার্ড নেতা আহত হয়েছেন।
কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ ফজলে রাব্বী বলেন, বামনী কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষ বাঁধে। খবর পেয়ে পুলিশ গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। তবে এ ঘটনায় থানায় কোনো পক্ষ অভিযোগ করেনি।
অধ্যক্ষ রাবার হোসেন বলেন, কলেজের প্রাক্তন কিছু ছাত্র ও বহিরাগত কলেজ ক্যাম্পাসের বাহিরে মারামারিতে লিপ্ত হয়েছিল। তিনি পুলিশকে খবর দিলে তারা আসার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়। তবে এতে কলেজের পাঠদানে কোনো সমস্যা হয়নি।

সড়ক দূর্ঘটনা, অপরাধ ও হামলা-সংঘর্ষ