শহীদ আমান উল্যাহ পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী
13
নিজস্ব প্রতিনিধি
রেলপথ মন্ত্রী মজিবুল হক বলেছেন, বিএনপির সময়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রেসক্রিপসনে বা নির্দেশে রেলপথ ধ্বংসের চেষ্টা করেছে। তাদের সময়ে রেলের কোনো উন্নয়ন হয়নি। রেলপথ নির্মাণতো দুরের কথা একটি ইঞ্জিন, বগিও আনতে পারিনি। পুরাতন রেরপথগুলোও সংস্কার করা হয়নি। গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের নামে হাজার হাজার রেলের কর্মচারীকে ছাটাঁই করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমান সরকারের সময় ৪৪টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। যার মাধ্যমে গোটা রেলবিভাগের ব্যাপক উন্নয়ন করা হচ্ছে। যাত্রীদের আরো উন্নত সেবা দেয়ার লক্ষে নেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ। শুধু রেলপথ নয় বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে যোগাযোগ, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ সব ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আগামীতে এ উন্ননের ধারা অব্যাহত রাখতে সকলকে আবারো আ.লীগ তথা শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে তাঁকে প্রধানমন্ত্রী করার আহ্বান জানান।
গতকাল শনিবার দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার কাজীরহাট শহীদ আমান উল্যাহ্ পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।  12
মন্ত্রী আরো বলেন, বিএনপি, জাতীয় পার্টি বা বিগত সরকারগুলো রেলপথের কোনো উন্নয়ন করেনি, উন্নয়নে কোনো নজর দেয়নি। এটি ছিল সম্পূর্ণ অবহেলিত। রেল পথ বলতে কোনো মনন্ত্রালয় ছিল না। ২০১১ সালের ৪ ডিসেম্বর রেপথ মনন্ত্রালয় গঠন করেন আ.লীগের দলীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেবার  মনভাব নিয়ে প্রধান মন্ত্রী রাজনীতি করার কারণে তিনি রেলবিভাগের ওপর নজর দিয়েছেন। কারণ রেলপথে বেশী মানুষ চলাচল করেন। বিগত সময়ে রেলপথে বাজেট ছিল ৫০০ কোটি টাকা, কিন্তু বর্তমান সরকার রেলপথের গুরুত্ব বুঝে বিধায় রেলপথে বাজেট দিয়েছেন ১৬ হাজার ১৩৫ কোটি টাকা।
পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অনুষ্ঠানের আহবায়ক ও সিনিয়র তথ্য সচিব ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের  জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের টিপু। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনের সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরন, নোয়াখালী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ডা. এবিএম জাফর উল্যাহ, সাবেক সাংসদ ও পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ হাসেম, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেলায়েত হোসেন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের নেতা চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, সানজি গ্রুপের চেয়ারম্যান লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিকসহ বিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রাক্তন কৃতি শিক্ষার্থীরা।
পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা, বিদ্যালয়ের শিক্ষককের সম্মনানা প্রদান, দিনভর আড্ডা  ছাড়াও বিকেলে ক্লোজ আপ তারকা, ক্ষুদে গান রাজসহ বিভিন্ন খ্যাত নামা শিল্পীদের অংশগ্রহনে মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও লেজার লাইট শো করা হয়।
এর আগে সকালে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানের বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন করেন নোয়াখালী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ডা. এবিএম জাফর উল্যাহ। পরে এক বণার্ঢ্য র‌্যালী বের হয়।
11